Saturday, 17 December 2016

Book Journey - Broken Open (Elizabeth Lesser)

This was first published at Writersmelon




Spirituality sounds like a big word, especially when you are twenty-three, and haven’t had any real crisis in your world so far. That was when I had first come across this book. The name on the cover read – Broken Open. And then there was a line below it, which read – How Difficult Times Can Help US Grow.  I was yet to know what that may mean. And yet, I had turned over its pages.

The book really can best be summarised by a quote of Anais Nin, which the Prelude opens with: “And the time came when the risk to remain tight in a bud was more painful than the risk it took to blossom.”

Tuesday, 13 December 2016

GOOD (K)NIGHT and GOOD MORNING!

Those were the times of coils that came in hard green pungent sheltering smelling cakes, shaped in thin spiral mazes. They could hardly beat the beasts, for when it was evening they would come around in battalion forces. The blow of the conch shells - they came in triads from different neighborhood houses and just when the sun would turn orange from white. We would know that with the first sound of it, we must hurry to climb up the beds, sofa or the benches  closest to the walls, to grab the wooden windows by their edges and pull them shut. The more organic households would put coconut leftovers into an iron handi and burn them to keep them away, and then, when even that would fail we would gather to clap our hands into a mad mass mosquito killing spree. Not that we hated it, for it also meant a respite from handwriting practice.


Thursday, 8 December 2016

পাড়ার মেয়ে



“পাড়ার মেয়ে” শব্দ জোড়াটা আজকাল প্রায় উঠেই গেছে বলা চলে। কোন বাড়ির মেয়ে, বড়জোর। অর্থাৎ কিনা, বাবা কাকা কেউ যদি পলিটিক্সে থাকেন বা অন্তত সিভিল সার্ভিসে, অথবা ডাক্তার উকিল কিছু একটা পারিবারিক বংশপরাক্রমে। একটু বড় হলে কোন স্কুলে দিলে গো মেয়েকে, বা কোন কলেজে চান্স পেলো, কোন সাব্জেক্ট? আবার, আর একটু বড় হলে মিসেস হেনা তেনা কিছু একটা, যাবতীয় লিঙ্গ সাম্যের মুখে চুনকালি মাখিয়ে। অফিসের ব্যাপারটা আবার আলাদা, ডিপার্টমেন্ট দিয়ে নামে চেনা যায়, ভিজিটিং কার্ডে একঝলকেই আন্দাজ করে নেওয়া যা কি বা তাঁর পড়াশোনা, কদ্দুর কি ক্ষমতা। বাচ্চার স্কুলে সেই বাচ্চার মা, ওই যে, ছোট করে চুল কাটা, বা একটু মোটার দিকে চেহারা। পরিচয় অনেক রকমেরই হয় বইকি। সব কিছু পেরিয়ে আবার এও জানা হয়ে যায় যে পরিচয় শব্দটাই একটা আগাগোড়া ভুল ধারণা, পুরো জীবনটাই আসলে নিজেকে খুঁজে ফেরার অলি গলি পাকস্থলী। তবু… 

তবু, এই বচ্ছরকার শীতকালের সময়টায় যে নিয়ম করে “ওমা, কবে এলি?“, হোক না মাত্র কটা দিনের জন্যই। অতীতের মায়া দিয়ে ঘেরা এই ব্যাক্তিচর্চা, এক নিশ্বাসে অনেকগুলো বছর অতিক্রম করে যায় চক্ষের নিমেষে। পাড়ার মেয়ে পরিচয়টা, আগের মতই এখনও, ডাকনামের উষ্ণতা নিয়ে ঘিরে থাকে আমার শীতকাল।