Sunday, 30 March 2014

দুষ্টু - মিষ্টু

আইডিয়াটা আমার মায়ের ছিল। ধপাসের প্রথম জন্মদিন। দিনটা আসার মাস তিনেক আগে থেকেই কি-দেব কি-দেব আলোচনায় সকাল বিকেল এয়ারটেলের এস-টি-ডি কল রমরমা বাজার করে নিচ্ছে, কিন্তু ফয়সালা আর কিছুতেই হচ্ছে না।

- জামা?
- তাহলে একটা আলমারিও দিও!
- খেলনা?
- দেখনি, ওর স্টক?
- সোনার জিনিস?
- ওসব নিজের কাছে রাখো, আমাকে বা আমার মেয়েকে দিতে আসবেনা। (গর্জন)
- তাহলে?
- দাঁড়াও, ভাবি।

Saturday, 29 March 2014

আমার পাড়াতুতো কৈশোর

আমার বন্ধুবান্ধবদের তুলনায় আমার কৈশোরটা এক্কেবারে আলাদা ছিল। বিশেষত সেন্ট থমাস' বা সেন্ট জেভিয়ারসের বন্ধুদের তুলনায়। মফঃস্বলে বড় হয়েছি বলে। এটা আমার একটা একান্তই অহংকারের জায়গা।

পুরো কৈশোর নিয়ে গুছিয়ে লিখতে সাঙ্ঘাতিক ক্ষমতা এবং ধৈর্য দরকার, যে দুটোর কোনটাই আমার নেই, এবং সেই বিষয়ে কোন সন্দেহও আমার নেই। তাই ভাবছি টুকরো টুকরো করে, মানে বুলেট পয়েন্টস করে ব্যাপারটা ধরার চেষ্টা করব। ঢেঁকি স্বর্গে গেলেও, ইত্যাদি...

যাই হোক! লিস্টে আসা যাক।

The Mirage

It is not going anywhere, she realizes. She realizes it almost everyday these days. But then, she does not know if that's what it's finally meant to be, or if things would change someday. Someday, as you say they would. She even wonders if she understands final at all, she doubts now. Thanks to you, however, that she now also knows herself enough to know this, that it has been one of her those weaknesses that has ended up shaping her life, and that was not really a good thing. What? Well, her ability to not be able to decide, to not be able to call off. To hope against hope, till the point she extinguishes. Hurt, she has caused to people, but no, not a blow. Never. Even if it were her worst of enemies, which she anyway had just very few.  (Oh okay, yes, she did do that once, and she could not be more sorry for that; but that is another story.) There, she digresses. But then, such is her mind these days! Wandering, in lack of better words. No, wait, searching could possibly explain it better. Searching, for a way, in the dark, and what she thought was light-at-end-of-tunnel as they say now pretty much looks like a mirage.

Thursday, 27 March 2014

চিঠি - অচেনা লোক

বর্ষণ,
তোকে চিঠি লেখাটা লং ডিউ ছিল। সরি রে। 
জানিস তো, আজ অফিস থেকে ফিরছি, হঠাৎ পেছন থেকে একজনকে দেখে একদম তোর মতো লাগলো। আমি তো আরেকটু হলে গাড়ির কাঁচ নামিয়ে ডেকেই ফেলতাম, ভাগ্যিস গাড়িটা স্পিডে চলছিল!
জানি তুই মনে মনে গালাগালি দিচ্ছিস - "গাড়ল! আমি তোকে খবর না দিয়ে তোর শহর ঘুরে আসবো! এই চিনলি?"

Wednesday, 26 March 2014

একদিন বৃষ্টিতে বিকেলে...

This has been published in a Bengali Magazine called "Shukhi Grihokone"



বিতানের সাথে সেদিন হাঁটতে হাঁটতে অনেকদুর চলে গেছি। কথা বলতে বলতে এ-গলি সে-গলি পেরিয়ে কখন যে রাস্তা হারিয়েছি, দুজনের কেউই খেয়াল করিনি। খেয়াল যখন হল, তখন বেশ গাঢ় সন্ধ্যেবেলা। আর তার সাথে লোডসেডিং, চারিদিকে ঘুটঘুটে অন্ধকার। শুনেও শুনব না করে শুনতে পাচ্ছি, মেঘের ডাকটা বাড়ছে, ধুলোর ঝড়টাও শুরু হয়ে গেছে, এবং অবধারিতভাবে আর একটুক্ষণের মধ্যেই তেড়ে বৃষ্টিটা নামবে। কিচ্ছু করার নেই!

পাড়াটা নতুন, বিতান বাড়িটা সবে ভাড়া নিয়েছে, আজ সকালেই চাবি পেয়েছে হাতে। পেয়েই ফোন। আমিও ঝোঁকের মাথায় অফিস ফেরত বাড়ি না গিয়ে যা হোক একটা কিছু বলে বাড়িটা দেখতে চলে এসেছি। আর তাছাড়া, বিতানকে যতটা চিনি, এসব পর্দা, পাপোষ, বিছানার চাদর টাইপের দৈনন্দিন জিনিসপত্র কিনতে গিয়েও ছড়িয়ে লাট করবে, তাই আসতে আমাকে হতই।

সব চরিত্র কাল্পনিক নয়

ভেবে টেবে যা দেখলাম, কিছু কাল্পনিক চরিত্র মাঠে না নামালে আমার ব্লগিং ব্যাপারটা জাস্ট জমছেনা!

আসলে সত্যি বলতে কি, আমার দৈনন্দিনের জীবনযাপন খুবই, কি বলব, যাকে Quality team বলে LEAN, তাই। মানে, লোকজনের সমাবেশ অথবা ঘটনাবলীর ঘনঘটার নিদারুণ অভাব। বাড়িতে বছর তিনেকের কন্যা, তাকে দেখার মাসি, দেখা সাক্ষাৎ অলমোস্ট না হওয়া বর, আর অফিসের ঘন্টা দশেকের দিনগত পাপক্ষয়ের সাথী কিছু নেহাতই চিনি-কিন্তু-জানি-না পরিচিতি। এই সামান্য সম্বল এবং ততধিক থোড়-বড়ি-খাড়া রুটিনে আর যাই হোক, ব্লগ লেখার রসদ বেশ কম। অগত্যা, কল্পনার আশ্রয়।

বিতান

বিতান, তোকে প্রেমিক হিসেবে চাইব নাকি বন্ধু হিসেবে, সেটা নিয়ে প্রথমে একটু কনফিউসড হয়ে পড়ছিলাম। তারপর ভাবলাম, তুই বন্ধুই থাক।

তুই এতো ম্যাচিওরর্ড, শান্ত, ধীর-স্থির টাইপের, আর আমার মাথায় এতোটাই ছিট, যে তোর আর আমার প্রেম ব্যাপারটা জাস্ট জমবেনা। আর সুখের বিষয় হল, সেটা নিয়ে তুই আর আমি দুজনেই একমত।

বর্ষণ

ধরা যাক, মাঝখানের অনেকগুলো বছর আমরা হারিয়ে গেছিলাম। ভুলে গেছিলাম, ভেসে গেছিলাম। এখন ফিরে এসেছি। এসে দেখছি, চারিদিকে অনেককিছু বদলে গেছে ঠিকই, কিন্তু আমরা দুজনে একটুও বদলাইনি। এটা সত্যি যে জীবনটা অনেকটা এগিয়ে গেছে, কিছু ঘটনা ঘটে গেছে, কিছু ডিসিশন নেওয়া হয়ে গেছে। তা যাক। কিন্তু মন? না, সেটা বদলায়নি। ইচ্ছেগুলো? না, তাও বদলায়নি। তবে?

Thursday, 20 March 2014

Happy Birthday to us

Okay, so you turn three.

Really?

Thursday, 13 March 2014

Musings... 3

Someday, I promise myself, I will love me.

I will give me my dues, I will let me be myself. I will unwind, I will rest, I will let go. I will learn to put me ahead.

I will stop to pretend happy when I won't be. I will let me cry once in a while. Or, as much, as me wishes.

I will call out, I will call off, I will call a bluff. I will let me fly.


Sunday, 9 March 2014

এ আমি কেমন আমি!

কেমন লিখি -

লোক হাসানোর মতো!

তাও কেন লিখি?

- মুখে বলে উঠতে পারিনা বলে;
- ভেন্ট আউট করতে, এবং
- জমিয়ে রাখতে।

যদি আমি আমি না হতাম -